হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে সরানোর জের! চরম সিদ্ধান্ত কলেজ পড়ুয়া তরুণীর

মেঘনার বিরুদ্ধে কয়েকদিন আগে মোবাইল চুরির অপবাদ দেন তাঁর বন্ধুরা। তার পরেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে মেঘনাকে রিমুভ করে দেওয়া হয়।

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে সরানোর পর চরম সিদ্ধান্ত নিলেন পড়ুয়া। প্রতীকী ছবি- থিঙ্কস্টক

আজকাল কথা বলার অন্যতম মাধ্যম হল হোয়াটসঅ্যাপ। ফেসবুকের মালিকানাধীন এই মেসেজিং অ্যাপে ‘গ্রুপ’ ফিচারটি আসার পর আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অ্যাপটি। গ্রুপের মধ্যে চলে অনেক খুনসুটি, আড্ডাবাজি। কিন্তু গ্রুপের মধ্যেও মনোমালিন্য, ঝগড়াঝাঁটি কিন্তু কম চলে না। এই ঝগড়ার মাঝেই অনেক সময় বন্ধুকে রিমুভও করে দেওয়া হয়। কিন্তু তার পরিণতি যে কত মারাত্মক হতে পারে, তার প্রমাণ দিল এই ঘটনা।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, বেঙ্গালুরুর দায়ান্দ্রা কলেজের এক পড়ুয়া কয়েকদিন আগে আত্মহত্যা করেন। জানা গিয়েছে, মেঘনা নামে ওই ছাত্রীর সঙ্গে বেশ কয়েকদিন ধরেই তাঁর কলেজের বন্ধুদের বনিবনা হচ্ছিল না। তার ফলে মনোকষ্টে ভুগছিলেন তিনি।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, মেঘনার বিরুদ্ধে কয়েকদিন আগে মোবাইল চুরির অপবাদ দেন তাঁর বন্ধুরা। তার পরেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে মেঘনাকে রিমুভ করে দেওয়া হয়। এর পরেই গলায় দড়ি আত্মহত্যা করে সে, বলে দাবি মৃতের পরিবারের।

ইতিমধ্যে মেঘনার পরিবারের পক্ষ থেকে চার জন বন্ধুর বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

বাকিদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply